অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন থেকে গুগল লোকেশন বন্ধ করবেন যেভাবে

এখনই ডেস্ক নিউজঃ
  • প্রকাশিত: ২৫ এপ্রিল ২০২১, ৬:৪১ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৩ মাস আগে

সম্প্রতি জানা গেছে, ২০১৭ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর অবধি অস্ট্রেলিয়ায় যারা নতুন অ্যাকাউন্ট খুলেছেন তাদের তথ্য পাঁচার করেছে গুগল। অনেকে মনে করেছেন, ‘লোকেশন হিস্ট্রি’ বন্ধ করে রাখলে গুগল তথ্য পাঁচার করতে পারবে না। কিন্তু তারপরেও ব্যবহারকারীর অবস্থান বিষয়ক তথ্য পাঁচার চালিয়ে যায় গুগল।

গুগল ম্যাপের মতো একাধিক অ্যাপকে ব্যবহারকারীর অবস্থান বিষয়ক তথ্য সরবরাহ করে গুগল। এতে ব্যবহারকারী কোথায় নিয়মিত যান এবং কোথায় যেতে পছন্দ করেন- কোনো কিছুই গুগলের অজানা থাকছে না। বিষয়টি অনেক ব্যবহারকারীই পছন্দ করছেন না। তাই ব্যক্তিগত তথ্যের সুরক্ষার জন্য গুগলের অবস্থান বিষয়ক তথ্য বন্ধ করার উপায় রয়েছে। এই উপায় অবলম্বন করে সহজেই অ্যান্ড্রয়েড থেকে লোকেশন ডেটা ট্র্যাকিং বা তথ্য পাঁচার বন্ধ করা যায়। উপায়গুলো হলো-

১. অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে গুগলের সব অ্যাপ ইন্সটল করা থাকলে সহজেই অবস্থান বিষয়ক তথ্য মুছে ফেলা সম্ভব। প্রথমে গুগল ম্যাপ ওপেন করতে হবে।

২. গুগল অ্যাকাউন্টে লগ-ইন করুন। আপনার ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টেই লোকেশন ডেটা ট্র্যাক করে গুগল।

৩. তারপর আবার গুগল ম্যাপ ওপেন করুন।

৪. ম্যাপ লোড হলে ডানদিকে ওপরে অ্যাকাউন্ট আইকনে ক্লিক করুন।

৫. এবার আপনি ‘ইওর টাইমলাইন’ অপশন দেখতে পাবেন।

৬. ড্রপডাউন মেনুতে ‘সেটিংস অ্যান্ড প্রাইভেসি’ সিলেক্ট করলে নতুন একটি মেনু খুলবে।

৭. তারপর ‘লোকেশন সেটিংস’ নামে একটি সাব-মেনুর অধীনে ‘ডিলিট অল লোকেশন হিস্টোরি’ সিলেক্ট করুন।

এভাবে আপনার গুগল লোকেশন হিস্টোরি মুছে ফেলা যাবে। তবে অনেকেই এমন রয়েছেন যারা ভবিষ্যতে কখনো লোকেশন হিস্টোরি ট্র্যাক করতে চান না। তার জন্য যা করতে হবে-

১. স্থায়ীভাবে ‘গুগল লোকেশন ট্র্যাকিং’ বন্ধ করতে ‘সেটিংস অ্যান্ড প্রাইভেসি মেনু’ সিলেক্ট করুন।

২. এবার নিশ্চয় আপনি ‘লোকেশন ইজ অন’ ও ‘লোকেশন হিস্টোরি ইজ অন’ নামে দুটি অপশন দেখতে পাবেন। এই দুই অপশন বন্ধ করে দিলেই ভবিষ্যতে আর কখনো আপনার তথ্য ট্র্যাকিং বা পাঁচার করতে পারবে না গুগল।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

কারিগরী সহায়তায়: নি-টেক