`হেফাজতের একটি অংশ করোনার চেয়েও ভয়ঙ্কর`

এখনই ডেস্ক নিউজঃ
  • প্রকাশিত: ১৯ এপ্রিল ২০২১, ৪:০৬ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৩ মাস আগে

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম বলেছেন, হেফাজত বিএনপি-জামায়াতের অংশে পরিণত হয়েছে এবং রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিল করার জন্য সারাদেশে তাণ্ডব চালিয়েছে। তাদের অপরাধ বিবেচনা করে বিভিন্ন ভিডিও ফুটেজ ও প্রমাণ দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

হেফাজত নেতাদের গ্রেফতার এবং দেশে ধর্মভিত্তিক রাজনীতির বিভিন্ন দিক নিয়ে বাংলা ইনসাইডারের সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় এসব কথা বলেছেন আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম। পাঠকদের জন্য আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিমের সাক্ষাৎকার নিয়েছেন বাংলা ইনসাইডারের নিজস্ব প্রতিবেদক জুয়েল খান।

বাহাউদ্দিন নাসিম বলেন, হোফাজত ও উগ্র মৌলবাদী ধর্ম ব্যবসায়ীরা বলে যে তারা কোনো রাজনীতি করে না কিন্তু এরা প্রত্যেকেই বিভিন্নভাবে জামায়াত-শিবির, বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পর্ক আছে। পর্দার আড়ালে এসব দলের সঙ্গে এদের যোগাযোগ রয়েছে। বিএনপি জামায়াত-শিবিরের কর্মসূচি বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছে এরা। যদিও বিএনপি, জামায়াত অস্বীকার করে কিন্তু কাজে কর্মে বার বার সেটা প্রমাণ হয়েছে। তবে হেফাজতের সব নেতাই যে এই ষড়যন্ত্রের সঙ্গে জড়িতে আছেন এমনটি নয়। তবে একটা বড় অংশ রাষ্ট্র ও সরকার বিরোধী ষড়যন্ত্রের সঙ্গে আছে।

হেফাজত ও উগ্র মৌলবাদীরা কথায় কথায় ইসলামের দোহাই দিয়ে পার পাওয়ার চেষ্টা করে জানিয়ে তিনি বলেন, তারা সারাদেশে ধ্বংসলীলা চালিয়েছে, মানুষের প্রাণহানী ঘটিয়েছে। তাই প্রচলিত আইনের তাদেরকে গ্রেফতার করা হচ্ছে। কিন্তু এখন পবিত্র মাহে রমজান চলছে। আর এই সময় তারা এটাকে অন্য খাতে নেয়ার জন্য বলছে রমজানে তাদেরকে ঠিকমতো ইবাদাত করতে না দিয়ে গ্রেফতার করা হচ্ছে। এভাবে এই  অপরাধ থেকে পার পাওয়ার জন্য এর মধ্যে ধর্মকে আনা হচ্ছে এবং তারা বলার চেষ্টা করছে আলেম সমাজকে বেছে বেছে ধরা হচ্ছে। কিন্তু বাস্তবতা হলো যারা অপরাধ করেছে তাদেরকেই ধরা হচ্ছে, আলেম সমাজকে নয়। আলেম সমাজ আর হেফাজত এক নয়।

আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম বলেন, হেফাজতের অনেক নেতা আছেন যারা করোনার চেয়েও ভয়ঙ্কর এবং তারা ক্ষণে ক্ষণে নিজেদের রূপ পাল্টায়। মৌলবাদী ও ৭১ এর পরাজিত শক্তিরা এখনকার বাংলাদেশের অগ্রগতি মেনে নিতে না পারার অন্তর্জ্বালা থেকে ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে অপরাজনীতি করার পায়তারায় লিপ্ত। যখন বাংলাদেশের অর্জনে সারাবিশ্বের কাছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমাদৃত হচ্ছেন তখন একদল বিরোধী এবং পরাজিত কুচক্রীমহল দেশকে অস্থিতিশীল করে বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের সুনাম ক্ষুন্ন করতে ২৬ মার্চের স্বাধীনতা দিবসের দিনে সারাদেশে তাণ্ডব চালিয়েছে। এটা অপরাধ এবং প্রচলিত আইনের এদের বিচার হবে।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

কারিগরী সহায়তায়: নি-টেক